ব্রেকিং নিউজ
wb_sunny

ব্রেকিং নিউজ

মোটরযানের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রাপ্তির নিয়মাবলী

মোটরযানের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রাপ্তির নিয়মাবলী

 

মোটরযানের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রাপ্তির নিয়মাবলী

মোটরযান আমাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় বাহন। মোটরযান পরিচালনার ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় কিছু নিয়মাবলি রয়েছে। যার জন্য প্রয়োজন রয়েছে মোটরযানের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের। আর তাই আজ চেষ্টা করবো মোটরযানের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রাপ্তির নিয়মাবলী সর্ম্পকে।

মোটরযানের ফিটনেস প্রাপ্তির নিয়মাবলী

  • ১) নতুন মোটরযান ক্রয়ে পরে মোটরযানের প্রথম ফিটনেস সার্টিফিকেট রেজিষ্ট্রেশন সার্টিফিকেটের সাথেই সরবরাহ করা হয় ।
  • ২) পরবর্তীতে (১বছর পর) ফিটনেস সার্টিফিকেটের জন্য সংশ্লিষ্ট বিআরটিএ অফিস অথবা ওয়েব সাইট থেকে ফিটনেসের নির্ধারিত আবেদন ফরম সংগ্রহ করতে হবে।
  • ৩) মালিক/প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আবেদনপত্রটি যথাযথভাবে পূরন করতঃ পূর্বের মূল ফিটনেস সার্টিফিকেট, মালিকের টিআইএন (TIN) সার্টিফিকেট, হালনাগাদ ট্যাক্স টোকেন এবং রুট পারামিটের ফটোকপি (প্রযোজ্য ক্ষেত্র) আবেদনপত্রর সাথে সংযুক্ত করতে হবে।
  • ৪) অতঃপর বিআটিএর সংশ্লিষ্ট শাখা হতে ফিস জমা করার চালানপত্র সংগ্রহ করে নির্ধারিত অন-লাইন ব্যাংকে ফিটনেস ফিস ও আয়করের টাকা জমা করতঃ জমা রশিদের বিআরটিএ'র কপিসহ উল্লিখি কাগজপত্রাদি আবেদনপত্রের সঙ্গে উক্ত শাখায় দাখিল করতে হবে ।
  • ৫) মোটরযানটি কে সরাসরি বিআরটিএ অফিসে উপস্থিত করতে হবে ।
  • ৬) মোটরযানটি যান্ত্রিকভাবে ত্রুটিযুক্ত হলে মালিক কর্তৃক নিজ দায়িত্বে মেরামত করে পুনরায় পরিদর্শন ফিস জমাসহ মোটরযানটি সংশ্লিষ্ট বিআরটিএ অফিসে উপস্থিত করতে হবে।
  • ৭) পরিদর্শনকৃত মোটরযানটি ত্রুটিমুক্ত বিবেচিত হলে পরবর্তী এক বছরের জন্য ফিটনেস সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে ।
  • ১) নতুন মোটরযানের সর্ব প্রথম ফিটনেস সার্টিফিকেট রেজিষ্ট্রেশন সার্টিফিকেট সরবরাহ করা হয়।
  • ২) পরবর্তীতে (১ বছর পর) ফিটনেস সার্টিফিকেটের জন্য সংশ্লিষ্ট বিআরটিএ অফিস অথবা ওয়েব সাইট থেকে ফিটনেসের নির্ধারিত আবেদন ফরমর সংগ্রহ করতে হবে ।
  • ৩) মালিক/প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আবেদনপত্রটি যথাযথভাবে পূরন করতঃ পূর্বের মূল ফিটনেস সার্টিফিকেট, মালিকের টিআইএন (TIN) সার্টিফিকেট, হালনাগাদ ট্যাক্স টোকেন এবং রুট পারামিটের ফটোকপি (প্রযোজ্য ক্ষেত্র) আবেদনপত্রর সাথে সংযুক্ত করতে হবে ।
  • ৪) অতঃপর বিআটিএর সংশ্লিষ্ট শাখা হতে ফিস জমা করার চালানপত্র সংগ্রহ করে নির্ধারিত অন-লাইন ব্যাংকে ফিটনেস ফিস ও আয়করের টাকা জমা করতঃ জমা রশিদের বিআরটিএ'র কপিসহ উল্লিখি কাগজপত্রাদি আবেদনপত্রের সঙ্গে সংযুক্ত করে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের শাখায় দাখিল করতে হবে ।
  • ৫) মোটরযানটি সরাসরি সংশ্লিষ্ট বিআরটিএ অফিসে উপস্থিত করতে হবে ।
  • ৬) মোটরযানটি যান্ত্রিকভাবে ত্রুটিযুক্ত হলে মালিক কর্তৃক নিজ দায়িত্বে মেরামত করে পুনরায় পরিদর্শন ফিস জমাসহ মোটরযানটি সংশ্লিষ্ট বিআরটিএ অফিসে উপস্থিত করতে হবে ।
  • ৭) পরিদর্শনকৃত মোটরযানটি ত্রুটিমুক্ত বিবেচিত হলে পরবর্তী এক বছরের জন্য ফিটনেস সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে ।

মোটরযানের ট্যাক্স টোকেন প্রাপ্তির নিয়মাবলী

  • ১) মোটরযান রেজিষ্ট্রেশনের সময় ১ম ট্যাক্স টোকেন বিআরটিএ কর্তৃক ইস্যু/সরবরাহ্‌ করা হয় ৷
  • ২) পরবর্তীতে বিআরটিএ কর্তৃক অনুমোদিত যেকোনো ব্যাংককে ফিস জমা ক্ষেত্রে ট্যাক্স টোকেন নবায়ন/প্রতিলিপি ইস্যু/সরবরাহ করা হয় ৷
  • ৩) ট্যাক্স টোকেন নবায়ন/প্রতিলিপি গ্রহনের সময় ব্যাংকে মূল কপি ট্যাক্স টোকেনের ও ক্ষেত্রে জিডি দাখিল করতে হবে ।

মোটরযানের রুট পারমিট প্রাপ্তির নিয়মাবলী

  • (১) সংশ্লিষ্ট বিআরটিএ অফিস অথবা ওয়েব সাইট থেকে অনধিক দুই জেলার মধ্যে চলাচলকারী ঠ্টেজ ক্যারেজ, কন্ট্রাষ্ট ক্যারেজ এবং যে কোন ক্লটে চলাচলকারী সাধারণ পরিবহন/প্রাইভেট পরিবহন (মালাবাহী ট্রাক, ভ্যান, ট্যাংকলরী ইত্যাদি) মোটরযানের রুট পারমিটের আবেদন ফরম সংগ্রহ করতে হবে ৷
  • (২) মালিক কর্তৃক আবদেনপত্রটি যথাযথভাবে পূরন করতঃ রেজিষ্ট্রেশন সার্টিফিকেট, ইন্স্যুরেল, হালনাগাদ ফিটনেস, ট্যাক্স টোকেন, চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স, চালকের নিয়োগ পত্রের ফটোকপি এবং পূর্বের মূল রুট পারমিট (নবায়নের ক্ষেত্রে) আবেদনপত্রের সঙ্গে সংযুক্ত করতে হবে ।
  • (৩) বিআরটিএ'র শাখা থেকে ফিস জমা করার পরে চালানপত্র গ্রহন করে নির্ধারিত অন-লাইন ব্যাংকে রুট পারমিটের ফিস জমা করতঃ জমা রশিদের বিআরটিএ'র কপিসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি আবেদনপত্রের সাথে করে সংশ্লিষ্ট শাখায় দাখিল করতে হবে ।
  • (৪) আবেদনপত্রটি সংশ্লিষ্ট শাখায় দাখিল করলে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য একটি প্রাপ্তি স্বীকারপত্র প্রদান করা হবে ।
  • (৫) পরবর্তীতে আঞ্চলিক পরিবহন পরিচানা কমিটি (আরটিসি) এর সভায় অনুমোদন করে রুট পারমিট ইস্যু/নবায়ন কার্যক্রম নিস্পত্তি করা হবে ।

মোটরযানের ডিজিটাল রেজিষ্ট্রশন সার্টিফিকেট (DRC) প্রাপ্তির নিয়মাবলী

  • (১) নতুন মোটরযানের ক্ষেত্রে মোটরযান রেজিস্ট্রেশনের ফিস ও কর নির্ধারিত অন-লাইন ব্যাংকে জমার সময়ে সংশ্লিষ্ট মোটরযানের ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেটের নির্ধারিত ফিস সয়ংক্রিয় ভাবে জমা হয়ে যাবে ৷
  • (২) পূর্বেই রেজিস্ট্রেশনকৃত মোটরযানের ক্ষেত্রে যে কোন প্রয়োজনে মোটরযানের কর/ফিস নির্ধারিত অন-লাইন ব্যাংকে জমার সময়ে সংশ্লিষ্ট মোটরযানের ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেটের নির্ধারিত ফিস জমা দিতে হবে ৷
  • (৩) পরবর্তীতে ০৭ দিন পর অথবা গ্রাহকের মোবাইল ফোনে (১) ফিস জমার সময়ে গ্রাহক কর্তৃক ব্যাংকে প্রদত্ত মোবাইল নম্বর) মেসেজ পাওয়ার পর ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেটের ফিঙ্গার প্রিন্ট/বায়োমেট্রিক্স প্রদানের জন্য রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট, জাতিয় পরিচয়পত্র ও (DRC) ফিস জমা করার গ্রাহক কপিসহ বিআরটিএ অফিসে হাজির হতে হবে ৷
  • (৪) ফিঙ্গার প্রিন্ট/বায়োমেট্টিক্স কাজ সম্পনন হওয়ার পর সংশ্লিষ্ট গাড়ীতে ডিজিটাল নাম্বার প্লেট সংযোজন করার ২ থেকে ৩ মাসের মধ্যে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট গ্রহণ করার জন্য ফিস জমা করার সময় প্রদত্ত মোবাইল নাম্বারে ম্যাসেজ পাঠানো হবে ।
  • (৫) মেসেজে উল্লেখিত দিনে DRC ফিস জমার করার গ্রাহক কপি ও রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট/একনলেজমেন্ট স্টরিপের মূল কপিসহ বিআরটিএ অফিসে হাজির হয়ে সংশ্লিষ্ট শাখা থেকে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট (DRC) গ্রহণ করতে হবে ।

মোটরযানের ডিজিটাল নাম্বার প্লেট (DNP) প্রাপ্তির নিয়মাবলী

  • (১) নতুন মোটরযানের ক্ষেত্রে মোটরযান রেজিস্ট্রেশনের ফিস ও কর নির্ধারিত অন-লাইন ব্যাংকে জমার সময়ে সংশ্লিষ্ট মটরযানের ডিজিটাল নম্বর প্লেটের নির্ধারিত ফিস স্বয়ংক্রিয় ভাবে জমা হয়ে যাবে ।
  • (২) পূর্বেই রেজিষ্ট্রেশনকৃত মোটরযানের ক্ষেত্রে যে কোন প্রয়োজনে মোটরযানের কর/ফিস নির্ধারিত অন-লাইন ব্যাংকে জমার সময়ে সংশ্লিষ্ট মোটরযানের ডিজিটাল নম্বর প্রেটের নির্ধারিত ফিস জমা দিতে হবে ৷
  • (৩) পরবর্তীতে গ্রাহকের মোবাইল ফোনে (DNP) ফিস জমার সময়ে ব্যাংকে প্রদত্ত মোবাইল নম্বর) ডিজিটাল নম্বর প্লেট সংযোজন সংক্রান্ত একটি ম্যাসেজ পাঠানো হবে, যেখানে কোন তারিখে এবং কোন স্থানে মোটরযানটি হাজির করতে হবে তা উল্লেখ থাকবে ।
  • (৪) ম্যাসেজে উল্লেখিত দিনে ডিজিটাল নম্বর প্লেটের ফিস জমা রশিদের গ্রাহক কপিসহ মোটরযানটি নির্ধারিত স্থানে হাজির করা হলে বিএমটিএফ (বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী) এর বিশেষজ্ঞ দল নিজ দায়িত্ব মোটরযানে ডিজিটাল নম্বর পট সংযোজন করে দিবেন ।

মোটরযানের ড্রাইভিং লাইসেন্স (Motor Driving License) প্রাপ্তির নিয়মাবলী

    কোন ব্যক্তিকে মোটরযান চালনার কর্তৃত্ব প্রদান করে লাইসেন্স কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ইস্যুকৃত দলিলকে ড্রাইভিং লাইসেন্স বলে । ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যতীত গাড়ি চালানো আইনত দন্ডনীয় অপরাধ ৷ ১৮ বছরের কম বয়সী কাউকে ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করা হয় না ।

Tags

Newsletter Signup

Sed ut perspiciatis unde omnis iste natus error sit voluptatem accusantium doloremque.

Post a Comment