ব্রেকিং নিউজ
wb_sunny

ব্রেকিং নিউজ

মোবাইলের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সেটিংস 2024

মোবাইলের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সেটিংস 2024

 

মোবাইলের গুরুত্বপূর্ণ সেটিংস, মোবাইলের গুরুত্বপূর্ণ সেটিং, মোবাইলের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ একটা সেটিংস 2023, একটি গুরুত্বপূর্ণ মোবাইল সেটিং, মোবাইলের ডিসপ্লের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ একটা সেটিং, মোবাইলের একটা গুরুত্বপূর্ণ টিপস, মোবাইলের গুরুত্বপূর্ণ 5টি সেটিংস, গুরুত্বপূর্ণ একটা সেটিং ২০২৩, মোবাইলের গোপন সেটিং, ডিসপ্লের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ একটা সেটিং ২০২৩, মোবাইল ফোনের গুরুত্বপূর্ণ সেটিংস, মোবাইলের গুরুত্বপূর্ণ কোড, মোবাইলের গুরুত্বপূর্ণ ৫টি কোড, ফোনের ৪টি গুরুত্বপূর্ণ সেটিংস


আজকের এই তথ্যটি অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যাবহার কারীদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ন। কারন এই পোস্টে অ্যান্ড্রয়েড ফোন এমনি কিছু গুরুত্বপূর্ন সেটিংস নিয়ে আলোচনা করবো যেগুলো হয়তো ৯৯% মানুষেই যানে না। আর এই সেটিংসগুলো আমাদের অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যাবহারকে অনেক সহজ এবং উপভোগ করে তুলতে পারে।
 

মোবাইলের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ একটা সেটিংস 2023 

স্প্লিট স্ক্রিন অর মাল্টিটাস্কিংঃ অনেক সময় দেখা যায় আমাদের ফোনে এক সাথে দুটি সফটওয়্যার রান করা লাগে। যেমন মনে করেন আপনি চাচ্ছেন যে ফেজবুক এবং ইউটিউব এক সাথে রান করবেন। এগুলো এক সাথে রান করা সম্ভব। আপনি আপনার ফোনের সেটিংসে গিয়ে দেখতে হবে যে আপনি ইস্প্রিড কিং অথবা আলাদা দুটি স্ক্রিন এক সাথে চালাতে গেলে কোন অপশনটি কিভাবে ব্যাবহার করতে হবে। যেমন আমি স্যামসাং ফোন ব্যাবহার করি। সাধারন স্যামসাং ফোনে ত্রি ডট মেনু থাকে। ত্রি ডট মনুতে ক্লিক করার পর উপরের যেই আইকনটি থাকে সেই আইকনে ক্লিক করতে হবে। আইকনে ক্লিক করার পর সেখানে লেখা থাকবে অপেন ইন স্প্লিট স্ক্রিন ভিউ এখানে ক্লিক করতে হবে। অপেন ইন স্প্লিট স্ক্রিস ভিউ এখানে ক্লিক করার দেখবেন আপনার স্ক্রিনটি দুটি ভাগে ভাগ হয়ে যাবে। তার আপটি চাইলে ফেজবুক, উইটিউভ অথবা অন্যান্য যেকোনো এপস ব্যাবহার করবেন। সেখানে সব এপস থাকবে আপনি যেই এপসটি ব্যাবহার করবেন সেটিতে ক্লিক করলে দুটি এক সাথে রান হয়ে যাবে। তখন আপনি দুটি এপস এক সাথে চালাতে পারবেন। এবার আসুন কালার ওয়েসের দিকে যান। অপর কালার ওয়েসের খেত্রে হচ্ছে নিচের দিক থেকে টেনে উপরের দিকে টেনে নেন তাহলে আপনার  স্কিনটি দুটি ভাগে ভাগ হয়ে যাবে। আপনার যেই এপসটি চালু থাকবে। সেই এপসটি চালু থাকা অবস্থায় নিচেরি দিক থেকে টেনে তিনটি আঙ্গুল দিয়ে উপরের দিকে নিয়ে যাবেন। তখন দেখবেন আপনার স্কিনটি দুটি ভাগে ভাগ হয়ে যাবে। আপনাদের যেকোনো ফোন হোকনা কেনো সব ফোনের সেটিংসে তাদের ভিন্ন ভিন্ন অপশন থাকে আপনারা দেখে স্কিনটি চালু করে নিবে।
 

মোবাইলের ডিসপ্লের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ একটা সেটিং

ভয়েস টাইপিংঃ এটি খুবি খুবি গুরুত্বপূর্ন । কারন দেখা যায় যে আমরা প্রতিদিন আমাদের স্মার্ট ফোনে টেক্সট লিখে থাকি সেটি বাংলা অথবা ইংরেজি। আর এগুলো টাইপিং করতে আমাদের অনেক সময় প্রয়োজন হয়। এই সময় বাছানোর জন্য আপনাদের আপনার ইস্মার্ট ফোনের খুবি গুরুত্বপূর্ন সেটিংস রয়েছে যেগুলো আপনি করে নিলে ইংলিশ অথবা বাংলা মুখে বললে অটোমেটিক লেখা হতে থাকবে। মুখে বললে খুব তারা তারি টাইপ হতে থাকে। এটি খুবি মজাদার একটি সেটিংস আপনারা চাইলে আপনাদের স্মার্ট ফোনের সেটিংস করে এই কাজটি করতে পারেন।
 

মোবাইলের গুরুত্বপূর্ণ 5টি সেটিংস

ডুয়াল এপপ অর ক্লোন এপপঃ এই সেটিংসটিও আপনাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ । অনেক সময় দেখা যায় যে আমাদের ফেজবুক, হোয়াটসআপ অথবা ইমু দুটি একাউন্ট এক সাথে একি ফোনে ব্যাবহার করার প্রয়োজন হয়। এক্ষেত্রে এটা আমাদের জন্য সমস্যা যে এটা আমরা একটাকে লগ আউট করে আরেকটা একাউন্টকে লগইন করি। আপনারা চাইলে এই যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। কারন আপনার ফোনের যে সেটিংস রয়েছে সেখানে আপরি দেখবেন যে ক্লোন এপপ বা ডুয়াল এপপ নামে একটি অপশন থাকবে। সেখানে গিয়ে আপনারা দেখতে পাবেন যে যত ধরনের এপস রয়েছে সেখানে আইকন আকারে দেখাবে। সেটির পাশে ক্লিক করলে সেক্ষেত্রে এপসটি ডাবল হয়ে যাবে। তখন আপনার যেই এপসে ফেজবুক, হোয়াটসআপ অথবা ইমু ব্যাবহার করছেন। সেটি ছাড়াও একটি এপস আপনাদের সামনে দেখতে পাবেন। সেটি ‍দিয়ে আপনি নতুন একটি একাউন্ট ব্যাবহার করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে আপনি দুটি একাউন্ট একটি ফোনে একি সাথে ব্যাবহার করতে পারবেন।
 
ব্যাটারি স্যাভারঃ ব্যাটারি বেকাপ নিয়ে আপনাদেরকে জানাবো। অনেক সময় দেখা যায় যে এমন একটি পরিস্থিতিতে পরেচি যে আমাদের ব্যাটারি বেকাপ অনেক বেশি প্রয়োজন হয়। কিন্তু ফোনটিকে ব্যাবহার না করলেও আপনি সর্বোচ্ছ ৪ থেকে ৫ ঘন্টা ব্যাটিরি বেকাপ পাবেন। কারন আপনাদের ফোনের ব্যাগ্রাউন্ডে যত এপস রয়েছে অথবা যা কিছূ আছে সব কিছূ কিন্তু এক সাথে রান করে থাকে। এটির থেকে বাছার জন্য এক্ষেত্রে আপনারা আপনাদের ফোনের সেটিংসের ব্যাটারি অপশনে গেলে দেখতে পাবেন যে আল্ট্রা পাওয়ার সেভিং মোড নাকে একটি অপশন রয়েছে। এটি এক এক ফোনের এক এক ধরনের থাকতে পারে। তাই আপনার নিজেদের ফোনে একটু খুজে নিবেন। সেটিকে যদি আপনি অন করে ‍দেন তাহলে দেখতে পাবেন আপনার ফোনটি পুরো কালো হয়ে গেছে। আবার দেখবেন সুনির্দিষ্ট দুই একটি এপস প্রেশারলি আপনার যেমন ডায়াল এপস বা অন্য দুই একটা এপস রেখে বাকী সমস্ত কিছূ বন্ধ হয়ে গেছে। এক্ষেত্রে আপনি আপনার ফোনের ব্যাটারি দীর্ঘ বেকাপ পাবেন।
 
জিস্টারঃ আজকে আপনাদেরকে জানাবো জিস্টার সম্পর্কে। এটি আমাদের স্মার্ট ফোনের ব্যাবহারকে অনেক বেশি সহজ এবং উপভোগ্য করে তুলতে পারে। যেমন ধরেন আপনার স্মার্ট ফোনে কোনো রিং আসলো সেই স্কিনটিকে টাস করে রিসিভ করতে পারছেন না। এক্ষেত্রে আপনার ফোন কানের কাছে নিয়ে গেলে সাথে সাথে রিসিভ হয়ে যাবে। এটি একটি খুব মাঝাদার বিষয়। আপনার ফোনে রিং আসলো আপনি সেটিকে মিউট করার সময় পাচ্ছেন না শুধু মাত্র আপনি সেটিকে রেখে ‍দিলেন সাথে সাথে মিউট হয়ে গেলে। এরকম আরো অনেক মঝাদার পিউচার রয়েছে। মনে করেন আপনার সিমটি বন্ধ রয়েছে। সেক্ষেত্রে আপনি যদি (ও) প্রেস করেন সাথে সাথে আপনার ফোনের কেমেরা চালু হয়ে যাবে। আবার যদি (এম) লেখেন তখন দেখবেন মিউজিক চালু হয়ে গেছে। এরকম কিছু ইন্টারেস্টিক পিউচার রয়েছে। এই গুলো আপনারা জিস্টারে পাবেন। আপনার ফোনের সেটিংসে গেলে জিস্টার নামে একটি সেটিংস রয়েছে সটিতে গেলে আপনার দেখতে পাবেন সেখানে অনেক অনেক ইন্টারেস্টিক পিউচার রয়েছে। এক এক ফোনের সেটিংস এক এক রকম আপনারা খুজে খুজে বের করবেন।
 
ইউ, এস, বি, টেথেরিংঃ মনে করেন আপনার ফোনের ডাটা আছে সেটি ব্যাবহার করে আপনি ইন্টানেট চালাতে পারছেন। কিন্তু এমন একটি প্রয়োজন পড়ল যেটা আপনার পি, সি থেকে অন করতে হবে। কিন্তু আপনার পি, সি তে কোনো মডাম নেই এবং ইন্টারনেটের কানেক্টও নেই। এক্ষেত্রে আপনি আপনার স্মার্ট ফোনেটিকে একটি মডাম হিসেবে ব্যাবহার করতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনাদের যেই কাজটি করতে হবে সেটি হলো আপনার স্মার্ট ফোনে ইউ, এস, বি, কেবল পি, সির সাথে কান্টে করবেন। পি, সিতে কানেক্ট করার পর আপনার ফোনের সেটিংসে যাবেন। সেখানে দেখবেন ইউ, এস, বি, টেথেরিং অপশন আছে। সেটি বন্ধ থাকবে সিটকে আপনি চালু করে দিবেন। চালু করার পর আপনার ফোনের নেটোয়ার্ক বা যেই ডাটা রয়েছে সেটি দেখবেন অটোমেটিক আপনার ফোনের সাথে কানেক্ট হয়ে গেছে।
 
ও.টি.জি কেবলঃ আপনাদের ফোনে যদি (ও.টি.জি) সাপর্ট করে থাকে সেক্ষেত্রে আপনাকে ও.টি.জি কেবল কিনে নিতে হবে। আর সেই ও.টি.জি কেবল দিয়ে আপনি সরাসরি পেন্ড্রাইবকে আপনার ফোনের সাথে যুক্ত করে চালাতে পারবেন। তার মানে হচ্ছে পেন্ড্রাইবের যেই ডাটা আছে সেটি আপনি ফোনে নিতে পারেন। আবার আপনার ফোনের যেই ডাটা আছে সেগুলোও সরাসরি পেন্ড্রাইবে নিতে পারবেন। এছাড়াও আপনারা চাইলে আপনাদের কিবোর্ডটাকেও কানেক্ট করতে পারেন আপনার ফোনের সাথে। তার মানে হচ্ছে আপনি কিবোর্ডে লেখা লেখি করলে সরাসরি আপনার ফোনে লেখাগুলো উঠতে থাকে। এটি চাইলে আপনারা আপনাদের স্মার্ট ফোনে দিয়ে ব্যাবহার করতে পারেন।
ডার্ক মোডঃ এই ডার্ক মোড থেকে আপনারা অনেক পেছেলিটি পাবেন। প্রথমত আপনাদের ফোনের ব্যাটারি কনজেম অনেক কমে যাবে। দ্বীতিয় হচ্ছে আমরা যখন লোং টাইম মোবাইল ব্যাবহার করি তখন সেখান থেকে যেই আলোটা আমাদের চোখে সরাসরি আসে সেটি কিন্তু আমাদের চোখের জন্য মারাত্বক ক্ষতিকর। রাতের বেলায় আমাদের বেশি ক্ষতি হয়। সুতরাং আপনারা যদি এই ডার্ক মোডটি চালু করে রাখুন তাহলে দেখতে পাবেন ফোনের সবকিছু কালো হয়ে গেছে। সেক্ষেত্রে আপনাদের ফোনের ব্যাটারি ব্যকাপ বেশি ‍দিবে এবং চোখের ক্ষতি থেকে বাচতে পারবেন।
 
পাইন্ড এ ডিভাইসঃ এটি কিন্তু প্রত্যেকটা স্মার্ট ফোনের ডিপল ভাবে দেওয়া থাবে। আপনার যদি ই-মেইল দিয়ে আপনাদের এই অপশনটিকে চালু করে রাখেন তাহলে পরবর্তীতে আপনার ফোন হারিয়ে গেলে লোকেশন ট্রাস করতে পারবেন। এটি একটি মাঝাদার সেটিংস। 

Tags

Newsletter Signup

Sed ut perspiciatis unde omnis iste natus error sit voluptatem accusantium doloremque.

Post a Comment