ব্রেকিং নিউজ
wb_sunny

ব্রেকিং নিউজ

সঠিক নিয়মে মোবাইল চার্জ দেওয়ার সঠিক পদ্ধতি

সঠিক নিয়মে মোবাইল চার্জ দেওয়ার সঠিক পদ্ধতি

 

মোবাইল চার্জ দেওয়ার নিয়ম,মোবাইল চার্জে দেওয়ার সঠিক নিয়ম,মোবাইল চার্জ দেওয়ার ৬টি সঠিক পদ্ধতি,ফোনে চার্জ দেওয়ার সঠিক নিয়ম,চার্জ দেওয়ার ৫ টি সঠিক পদ্ধতি,মোবাইল চার্জ দেয়ার সঠিক ৫ টি নিয়ম,স্মার্টফোন চার্জ দেওয়ার সঠিক পদ্ধতি,সঠিক পদ্ধতিতে মোবাইল চার্জ,মোবাইল চার্জ করুন সঠিক পদ্ধতিতে,মোবাইল ফোন চার্জ দেওয়ার পদ্ধতি,মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম,#মোবাইল ফোনে চার্জ দেওয়ার সঠিক উপায়,সঠিকভাবে মোবাইল চার্জ করার নিয়ম,মোবাইল চার্জ করার সঠিক নিয়ম,মোবাইলে চার্জ থাকে না


বর্তমানে আমাদের মাঝে একটা ভূল ধারনা রয়েছে। যে রাতে বেলায় মোবাইল চার্জ দিলে নিশ্চিন্তে মোবাইল চার্জে দিয়ে ঘুমিয়ে থাকা যাবে। কারণ মোবাইলটি ১০০% চার্জ হওয়ার পর সে নিজে থেকে আর চার্জ নিবে না। কিন্তু আমার এটা ভুলে যাচ্ছি। যে চার্জারটি দিয়ে চার্জ দিচ্ছি সে চার্জটি কিন্তু স্মার্ট নয়। এমনি এখন পর্যন্ত কোনো স্মার্ট চার্জার কিন্তু বাজারে আসেও নাই। তো সেই চার্জারটি যেটা করবে, সে একের পরে এক মোবাইলের ভিতরে চার্জ হয়ে যাওয়ার পরেও সে চার্জ প্রবেশ করানোর চেষ্টা করবে। তো একটি কিন্তু একটা মোবাইলের জন্য মোটেও ভালো না। 
 

স্মার্টফোন চার্জ দেওয়ার সঠিক পদ্ধতি

দ্বিতীয় পর্যায়ে আমাদের মাঝে আরেকটি ভূল ধারনা রায়েছে । ফার্স্ট চার্জার দিয়ে আমরা মোবাইল চার্জ করি তাহলে ধীরে ধীরে মোবাইল নষ্ট হয়ে যাবে। তো আমরা চেষ্টা করবো এইসব উল্টাপাল্টা যত ভূল ধরনা আমাদের মাঝে বিরাজমান রয়েছে। এইসব ভূল ধারনার ভূল ভাঙিয়ে এবং কি ভাবে সঠিক পদ্ধিতে মোবাইল চার্জ দেওয়া উচিত, সেই সব সর্ম্পকে আপনাদের ধারনা দিতে।
 

সঠিক পদ্ধতিতে মোবাইল চার্জ

প্রথমেই আমরা জেনেই একটি ব্যাটারি কি ভাবে কাজ করে থাকে সেই বিষয়ে জেনে নেই।  একটি মোবাইল ব্যাটারিতে দুইটি পোল থাকে একটি হলে নেগেটিভ পোল আরেকটি হলো পজিটিব পোল। নেগেটিভ পোলে থাকে Free Electron এবং পজিটিব পোলে এত Elctron থাকে না।  Electron গুলো নেগেটিভ পোল থেকে পজিটিভ পোলে যেতে থাকে।  তখন পজিটিভ পোলের সব Electron চলে যায় এবং তখনি ব্যাটারির চার্জ জিরো হয়ে যায়। আর তখনি আমরা প্রয়োজনবোধ করি চার্জ দেওয়ার তাই আমরা মোবাইলে সাথে চার্জার সংযোগ করি। চার্জার ইলেকট্রিসিটি প্রদান করে পজিটিভ পোল থেকে আবার নেগেটিভ পোলে নিয়ে আসে। সব Electron যখন নেগেটিভ পোলে এসে পড়ে তখন আমরা মোবাইলে ১০০% হিসেবে দেখতে পাই।
 

ফার্স্ট চাজারে কাজ:

একটি ফাস্ট চার্জারের কাজ হলো দুইটি পেজে ব্যাটারিকে চার্জা দেওয়। ফার্স্ট পেজের কাজ হলো ০% থেকে ৫০% পর্যন্ত চার্জ দেওয়া আর অপর পেজের কাজ হলো বাকী ৫০% চার্জ করা।
 

কি ভাবে ব্যাটারি চার্জ করা উচিত:

এখন যুগে অর্থাৎ ২০১৯ সালের শেষ কোয়াটার থেকে যে ফোন গুলো বাজারে এসেছে প্রায় বেশির ভাগ ফোন গুলো সাথেই ফাস্ট চার্জার রয়েছে। দেখা যাচ্ছে যে ১০ওয়াটের উপরে সে সব চার্জার গুলো রয়েছে সেই চার্জার গুলোকেই ফাস্ট চার্জার হিসেবেই ধরা হয়। তো গবেষকরা সাম্প্রতি যে গবেষনাটা করছে সেটা হলো ৫০% আসলে তো কম হয়ে যায়। তো তারা এক গবেষনা করে বের করেছে যে, সর্বচ্চো ৮০% যদি একটা ফোন কে চার্জ দেওয়া হয়। তাহলে Electron গুলো অনেকটা স্থায়ী থাকে অশান্ত হয় না। যেটা বলতে বুঝায়, আপনি যদি ৮০% চার্জ দেন তাহলে আপনার মোবাইলের জন্য সব চেয়ে ভালো হবে এবং ব্যাটারি সব চেয়ে কার্যাকারী হিসেবে চার্জ ভালো থাকবে। এবং অবশ্যই ব্যাটারির চার্জ ২০% কমে যাওয়ার আগে আপনাকে আবার মোবাইলের ব্যাটারিকে চার্জ দিতে হবে। অন্যথায় দেখা গেলো যদি ২০% এর নিচে সব সময়ই চার্জ থাকার পরে মোবাইলে চার্জ দেওয়া হয়। এতে করে ব্যাটারির উপর প্রভাব পড়ে যার ফলে ব্যাটারির লাইফ টাইম কমে যায়।
 

ব্যাটারি চার্জ দিয়ে ঘুমানো যাবে কি? 

ব্যাটারি চার্জ দিয়ে ঘুমানো বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের মতে একদমই না। মোবাইল চার্জ দিয়ে ঘুমানো যাবে না। তার কারণ হলো বর্তমান যুগে সকল মোবাইল গুলো চার্জ হচ্ছে সেটা ১.৩০ থেকে ২.০০ ঘন্টার এর মতো সময় লাগে। তাও এই সময়সীমাটি সবচ্ছো বলে ধারনা করা হয়। তবে এখনকার যুকে ১.০০ থেকে ১.২৫ এই সময়ের মধ্যেই বেশির ভাগ মোবাইল চার্জ হয়ে যায়। এর বাহিরর সময় ধরে যদি মোবাইল কে চার্জ দেওয়া হয় তাহলে মোবাইলে সেন্সর বাধাসৃষ্ট করতে থাকবে। যার ফলে মোবাইলে প্রসেসরের উপর প্রেসার পড়বে। ‍  
 

মোবাইল চার্জ দেওয়ার বিষয়ে সকেটও একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু:

মোবাইলর চার্জ দেওয়ার সময় একটি ভালো সকেট না হলেও মোবাইল চার্জ হতে সময় লাগে এবং পরবর্তীতে মোবাইলের প্রসেসর এবং ব্যাটারির উপর ইফেক্ট পড়বে। এতে করে প্রসসেরের ক্ষতি এবং চার্জারের লাইফ টাইম কমে যাবে।  

Tags

Newsletter Signup

Sed ut perspiciatis unde omnis iste natus error sit voluptatem accusantium doloremque.

Post a Comment